• শিরোনাম

    মুজিববর্ষে গৃহহীনদের আশ্রয়ণ প্রকল্প এমপির মায়ের নামে!

    | সোমবার, ২২ মার্চ ২০২১

    মুজিববর্ষে গৃহহীনদের আশ্রয়ণ প্রকল্প এমপির মায়ের নামে!

    ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কর্মকাণ্ডে তোলপাড় চলছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার গৃহহীন ও ভূমিহীনদের বাড়ি নির্মাণ প্রকল্প স্থানীয় সংসদ সদস্যের মায়ের নামে করা হয়েছে।

    তবে উপজেলা প্রশাসন বলছে এই বিষয়ে কাউকে অবগত করেননি উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান।

    উপজেলার বড়িকান্দি ইউনিয়নের নুরজাহানপুর গ্রামে গৃহহীনদের পুনর্বাসন প্রকল্পে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, প্রকল্পটিতে ৯০টি গৃহহীন পরিবারের জন্য ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। প্রকল্পের কিছু কাজ এখনও সম্পূর্ণ হয়নি। এর সামনে খালি জায়গায় প্লাস্টিকের সাইনবোর্ডে প্রকল্পের নাম লেখা আছে। সেই সাইনবোর্ডে স্থানীয় সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুলের মায়ের নামে ‘নুরজাহানপুর রাবেয়া খাতুন পল্লী’।

    এই ইউনিয়নের পাশের ইউনিয়ন সলিমগঞ্জের বাড়াইল গ্রামে ওই সংসদ সদস্যের গ্রামের বাড়ি। এতে স্থানীয়দের মাঝে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

    নাম না প্রকাশ করার শর্তে স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি বলেন, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান নবীনগর উপজেলায় প্রায় ১০ বছর যাবত চাকরি করে আসছেন। নানান অনিয়মের অভিযোগ থাকলেও দীর্ঘদিন এক উপজেলায় কাজ করে আসছেন তিনি। সম্প্রতি নির্মাণাধীন গুচ্ছগ্রামে প্রধানমন্ত্রী আশ্রয়ন প্রকল্প ব্যক্তির নামে না থাকার কথা থাকলেও নবীনগর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান স্থানীয় সংসদ সদস্যকে খুশি করতে তার মায়ের নামে এই প্রকল্পের নামকরণ করেছেন।

    এ বিষয়ে নবীনগর উপজেলা অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই বিষয়টি জানতে পেরেছি। আমি এই বিষয়ে পুরাপুরি অবগত নই। তবে যদি এমনটি হয়ে থাকে তাহলে এমপির মায়ের নামে না করে স্থানীয় কোনো মহীয়সী নারীর নামে প্রকল্পটি হলে যথাযথ হত।

    বড়িকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার পারভেজ হারুত বলেন, পিআইও স্যারের লোকজন এসে এখানে সাইনবোর্ডটি লাগিয়েছে। যেহেতু আমাদের এমপির মায়ের নামে সাইনবোর্ড লাগানো হয়েছে তাই আমরা এই বিষয়ে কিছুতো আর বলতে পারি না।

    প্রকল্পের নামকরণের বিষয়ে জানতে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিজানুর রহমানের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

    এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনের সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুলের ব্যক্তিগত মুঠোফোন নম্বরে কল করা হলে তিনিও রিসিভ করেননি। পরে তার মুঠোফোনে ক্ষুদে বার্তা পাঠালেও এর কোনো উত্তর দেননি এবাদুল করিম বুলবুল।

    তবে এই বিষয়ে নবীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) একরামুল সিদ্দিক বলেন, সংসদ সদস্য কিছুক্ষণ আগে আমাকে ফোনে জানিয়েছেন তার মায়ের নামে যে গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের নামকরণ করা হয়েছে তিনি তা অবগত নন। এমপি ও ইউএনওর সাথে পরামর্শ না করে কে বা কারা এই কাজটি করল তা যাচাই করা হবে। এ বিষয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকেও জিজ্ঞাসা করা হবে। সাইনবোর্ডটি সরিয়ে ফেলা হবে।-জাগো নিউজ

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
  • ফেসবুকে চিনাইরবার্তা.কম