• শিরোনাম

    প্রবাসী পুত্রকে নিয়ে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদ বাবা কামাল চৌধুরীর

    চিনাইরবার্তা.কম ষ্টাপ রিপোটার ঃ | মঙ্গলবার, ১৯ মে ২০২০

    প্রবাসী পুত্রকে নিয়ে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদ বাবা কামাল চৌধুরীর

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর সদর ইউনিয়নের বিশিষ্ট সমাজসেবক ও সাবেক নাসিরনগর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক কামাল চৌধুরীর বড় ছেলে মাসুম চৌধুরী ১১ মে ২০২০ বৈধ কাগজপত্র নিয়ে ইংল্যান্ডের রাজধানী লন্ডন থেকে দেশে ফিরেন। সে বাড়ীতে আসার পর স্বেচ্ছায় উপজেলার সহকারী কমিশনারের (ভূমি) সাথে যোগাযোগ করে এবং হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে তাঁর কি কি করণীয় আছে সে সম্পর্কে জানতে তার অফিসে যান। সহকারী কমিশনারের নিকট তাঁর পরিবারের মাধ্যমে করোনা টেস্টের রিপোর্টের (নেগেটিব) কাগজগুলো দেখান। কাগজপত্র দেখার পর সহকারী কমিশনার ভূমি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগের পরামর্শ দেন। তার পরামর্শ মত মাসুম চৌধুরী রিপোর্ট নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করলে হাসপাতালে কীট নেই বলে জানান এ কর্মকর্তা। তিনি বলেন এখন কীট শেষ হয়ে গেছে, নতুন কীট আসার পর রবিবার তাঁর নমুনা সংগ্রহ করবেন। এর আগ পর্যন্ত হোম মাসুম চৌধুরী কে নাসিরনগর সদরে তার নিজ বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেন এ কর্মকর্তা।

    ডাঃ অভিজিৎ রায়ের নির্দেশে লন্ডন প্রবাসী মাসুম চৌধুরী তার বাসা থেকে আর বাহির হয়নি। প্রয়োজনীয় সকল দিক নির্দেশনা মেনে বাসাতেই হোম কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন বলে জানান মাসুম চৌধুরীর পিতা মোঃ কামাল হোসেন চৌধুরী।

    এমতাবস্থায় গত বৃহস্পতিবার দুপুরে দায়িত্বপ্রাপ্ত কৃষি কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)র সাথে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার স্থান নিয়ে মতানৈক্য ও ভূল বুঝাবুঝির সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমা আশরাফি নির্দেশ করেন বিজয়নগরে কোয়ারেন্টাইনে যেতে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশ মেনে মাসুম চৌধুরী পার্শ্ববর্তী বিজয়নগর উপজেলা কোয়ারেন্টাইনে যেতে রাজী হয়। সেখানে যাওয়ার পরও লন্ডন প্রবাসীর বাড়িটিকে লকডাউন ঘোষনা করে উপজেলা প্রশাসন।

    উপজেলা প্রশাসন সুত্রে জানা যায়,প্রথমে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা,পরে স্থানীয় চেয়ারম্যান,তারপর ইউ,এন,ও সেনা বাহিনীর টহল টিম নিয়ে তাকে কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা বললে কারো কথা মানতে চায় না প্রবাসী মাসুম চৌধুরী।

    প্রবাসী মাসুম চৌধুরীর পিতা কামাল চৌধুরী মোবাইল ফোনে জানান- লন্ডন থেকে বাংলাদেশ বিমানবন্দর পৌছা পর্যন্ত বিভিন্ন টেষ্টের করোনা নেগেটিভ কাগজপত্র প্রদর্শন করে স্বেচ্ছায় প্রসাশনের সংশিষ্ট কতৃর্পক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ ও হাসপাতালে পরীক্ষার জন্য কীট না থাকা বিভিন্ন প্রসংগে প্রসাশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে সামান্য কথাবার্তা ও মতানৈক্য হয়েছিলো সেদিন কিন্তু বিভিন্ন গণমাধ্যমে এই সামান্য ঘটনাকে, অতিরঞ্জিত করে মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন, উদ্দ্যেশ্য প্রণোদিত ভাবে প্রচার করা হয়েছে। এতে তার ও পরিবারের মান সম্মান হানি ও সামাজিক ভাবে হেয়প্রতিপন্ন হয়েছে।তিনি বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমে মূল ঘটনার বিকৃত উপস্থাপন একজন সংবাদকর্মীর উদ্দ্যেশ্যমূলক,অপেশাদার ও হিংসাত্মক মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ বলে দাবী করেন মোঃ কামাল হোসেন চৌধুরী। তিনি অসত্য, কল্পনাপ্রসূত মিথ্যা ও মানহানীকরণ সংবাদ প্রচারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। মোঃ কামাল হোসেন চৌধুরী দুঃখ করে বলেন, আমার লন্ডন ফেরৎ বড় ছেলে মাসুম চৌধুরীর সকল কাগজপত্র ও ডকুমেন্ট সহ প্রসাশনের সাথে যোগাযোগ করার পরও তাকে নিজ বাড়িতে না রেখে বিজয়নগরে হোম কোয়ারেন্টইনে প্রেরণ,আমার সম্পূর্ণ বাড়িটি লকডাউন ঘোষনা,প্রচার মাধ্যমে বিভিন্ন অপপ্রচার সব মিলিয়ে আমি ও আমার পরিবার চরম হতাশার মধ্যে রয়েছি।

    বর্তমানে অসুস্থ্য শরীর নিয়ে বৃদ্ধ বয়সে বৃদ্ধ স্ত্রী ও সন্তান সম্ভবা পুত্র বধুকে নিয়ে খুবই মানবেতর জীবন যাপন করছেন বলে জানান, লন্ডন প্রবাসীর পিতা মোঃ কামাল হোসেন চৌধুরী। কামাল চৌধুরী প্রসাশন ও সংবাদ কর্মীদের এই মুহূর্তে প্রবাসী ও প্রবাসীর পরিবারের প্রতি আরো দায়িত্বশীল ও মানবিক আচরন করার দাবী জানান ।

     

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে চিনাইরবার্তা.কম