• শিরোনাম

    অধ্যাপক ডাঃ মঈনউদ্দীন আহমদ চৌধুরী

    আমাদের ব্রাহ্মনবাড়িয়ার একজন কৃতী সন্তান ও আমাদের গর্ব।

    চিনাইরবার্তা.কম অনলাইন ডেস্কঃ | সোমবার, ১৮ মে ২০২০

    আমাদের ব্রাহ্মনবাড়িয়ার একজন কৃতী সন্তান ও আমাদের গর্ব।

    অধ্যাপক ডাঃ মঈনউদ্দীন আহমদ চৌধুরী ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার চিনাইর গ্রামের সম্ভ্রান্ত চৌধুরী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

    তিনি চিনাইর অঞ্জুমান আরা উচ্চ বিদ্যালয় হতে ১৯৭৯ ইং সালে ওই স্কুলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে প্রথম বিভাগে এস এস সি এবং ১৯৮১ সালে ঢাকা কলেজ হতে কৃতিত্বের সাথে প্রথম বিভাগে এইচএসসি পাশ করেন। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হতে তিনি ১৯৮৮ সালে এমবিবিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ১৯৯১ইং সালে সরকারি চাকরিতে (বি সি এস হেলথ ক্যাডারে) যোগদান করেন। ২০০২ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (NITOR) হতে অর্থোপেডিক সার্জারী বিষয়ে এমএস ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি AO Basic এবং AO Advanced course in fracture management বিষয়ে থাইল্যান্ড হতে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। তিনি ২০০৫ সালে আমেরিকাতে অর্থোপেডিক্স বিষয়ে উচ্চতর কোর্স সম্পন্ন করেন এবং ২০০৯ সালে ভারতের গঙ্গা হাসপাতালে স্পাইন সার্জারিতে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।তিনি ২০২০ সালে আমেরিকান কলেজ অব সার্জন হতে ফেলোশীপ (FACS) অর্জন করেন।

    এযাবৎ প্রকাশিত বিভিন্ন জার্নালে অর্থোপেডিক্স সার্জারী ও চিকিৎসা বিষয়ে তাঁর বেশ কিছু গবেষণা ও প্রকাশনা রয়েছে এবং বিভিন্ন সেমিনারে তিনি বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন । তিনি আমেরিকা, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য, সুইজারল্যান্ড, ভিয়েনা (অস্ট্রিয়া), চীন, তাইওয়ান, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া,সাউথ আফ্রিকা, তুরস্ক ও ভারত সহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অর্থোপেডিকস বিষয়ে বৈজ্ঞানিক অধিবেশন ও প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে পেশাগত জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করেন। ট্রমা সার্জারি, পেডিয়াট্রিক (শিশু) অর্থোপেডিক সার্জারি এবং হিপ (উরুর সন্ধি) ও নি (হাটুর সন্ধি)রিপ্লেসমেন্ট সার্জারি বিষয়ে তিনি বিশেষ পারদর্শী।

    ছাত্রজীবনে তিনি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের ছাত্র ছাত্রী পরিচালিত স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান সন্ধানী এর কেন্দ্রীয় সভাপতি ছিলেন। তিনি বাংলাদেশ অর্থোপেডিক সোসাইটি, পেডিয়েট্রিক্স অর্থোপেডিক্স সোসাইটি অফ বাংলাদেশ, পেডিয়েট্রিক্স অর্থোপেডিক্স সোসাইটি অফ ইন্ডিয়া, বাংলাদেশ হ্যান্ড সার্জারি সোসাইটি, বাংলাদেশ স্পাইন সার্জারি সোসাইটি এবং বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের লাইফ মেম্বার। তিনি আমেরিকান একাডেমি অফ অর্থোপেডিক সার্জনস এর ইন্টারন্যাশনাল মেম্বার, এশিয়া প্যাসিফিক অর্থোপেডিক এসোসিয়েশন (APOA) এবং ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি অফ অর্থোপেডিক্স ও ট্রমাটোলজি (SICOT) এর মেম্বার।

    তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের জীবন সদস্য এবং চিনাইর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিগ্রী কলেজ এর গভর্নিং বডির একজন মেম্বার। তিনি ব্রাহ্মনবাড়ীয়া হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালের দাতা সদস্য এবং ব্রাহ্মনবাড়ীয়া রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি ও ব্রাহ্মনবাড়ীয়া জেলা সমিতির জীবন সদস্য। তাছাড়া তিনি আব্দুল হান্নান চৌধুরী স্মৃতি মেধাবৃত্তি, হাজেরা খানম মেধাবৃত্তি ও ফজলুল হক চৌধুরী স্মৃতি মেধাবৃত্তি এর দাতা।

    উল্লেখ্য, বর্তমানে তিনি NITOR (পঙ্গু হাসপাতাল)
    এ অধ্যাপক ও ইউনিট প্রধান হিসাবে কর্মরত আছেন।এখানে যোগদানের পূর্বে ডাঃ চৌধুরী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান এবং স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতালের অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
    করোনার এই মহামারী সময়েও উনি উনার নিজের কর্মসথল পংগু হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা অব্যাহত রেখেছেন ও ব্রাহ্মনবাড়ীয়ার মানুষকে টেলিমেডিসিন ও ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাচ্ছেন।
    মহান আল্লাহতায়ালা আমাদের এই কৃতিসন্তানকে নিরাপদ ও সুস্থ রাখুন, যাতে আমাদের ব্রাহ্মনবাড়ীয়ার মানুষ আরও দীর্ঘদিন উনার সেবা গ্রহণ করতে পারেন।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে চিনাইরবার্তা.কম