• শিরোনাম

    করোনাকালীন ধরপা’কড় বেড়েছে মালয়েশিয়ায়

    চিনাইরবার্তা.কম প্রবাস ডেস্কঃ | শনিবার, ১৬ মে ২০২০

    করোনাকালীন ধরপা’কড় বেড়েছে মালয়েশিয়ায়

    মালয়েশিয়ায় অ’বৈধ প্রবাসী’দের আ’টক অভিযান বেড়েই চলেছে। প্রতি’দিনই কোনো না কোনো স্থানে চলছে পুলিশি অভি’যান। ইতোমধ্যেই বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের দেড় হাজারের বেশি বিদেশিকে আ’টক করেছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ। করোনাভাইরাস নিয়’ন্ত্রণে চলমান লকডাউন সময়ে ইমিগ্রেশনের অভিযানের তীব্র নি’ন্দা জানিয়েছে দেশটির কয়েকটি বেসরকারি সংস্থা।সংকট’কালীন অ’বৈধ প্রবা’সীদের আটক না করে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন তারা। দেশটির ম্যানু’ফ্যাকচারিং এবং বেসরকারি সংস্থাগু’লি অনিবন্ধিত বি’দেশিকর্মীদের কোভিড -১৯ স্ক্রিনিংয়ে যেতে উৎসাহিত করার জন্য একটি সাধারণ ক্ষ’মা ঘোষণার দাবি জানানো হয়।১৩ মে বুধবার ফেডা’রেশন অব মাল’য়েশিয়ার ম্যানু’ফ্যাকচারার্স (এফএমএম) সভাপতি তান শ্রী সোহ থিয়ান লাই বলেছেন, অনিবন্ধিত বিদেশি কর্মীদের আটক হওয়ার আ’শঙ্কা ছাড়াই পরীক্ষা’র জন্য এগিয়ে আসার সুযোগ করে দিতে হবে এবং গভার্ন’মেন্ট টু গভার্ন’মেন্ট একটি চুক্তি হওয়া উচিত। যার আ’লোকে বিদে’শিরা জরিমানা ছাড়াই নিজ দেশে যাওয়ার সুযোগ দিতে হবে।

    থিয়ান লাই দেশটির জাতীয় দৈনিক স্টার অন’লাইনে একটি সাক্ষাতে বলেন, চলমান লকডাউনে অনিবন্ধিত কর্মীরা জীব’নের ঝুঁকি নিয়ে অনাহারে অর্ধাহারে বসবাস করছে। যা বেঁচে থাকার জন্য ন্যূ’নতম আবাসন মান পূরণ করে না। এক্ষেত্রে সং’ক্রমণের ঝুঁ’কি বাড়ায়।মা’র্সি মাল’য়েশিয়ার সভা’পতি দাতুক ডা. আহমদ ফয়জাল পার’দৌস বলছেন, অনি’বন্ধিত প্রবাসী শ্রমিকরা সরকারি স্বাস্থ্য’সেবাতে এগিয়ে আসার সম্ভা’বনা কম। এটি এ কারণে নয় যে তারা পরীক্ষা করতে চান না, তবে তারা আটক হওয়ার ভয়ে রয়েছেন।তিনি বলেন,‘বৈধ এবং অ’বৈধ উভয় প্রবাসী শ্রমিক রয়েছেন, যাদের পরীক্ষা করা হয়েছিল এবং লক্ষণাত্মক ও চিকিৎ’সার জন্য রেফার করা হয়েছিল। তবে হালকা বা লক্ষণ’যুক্ত ব্যক্তি’রা সম্ভবত এগিয়ে আস’বেন না।যদিও এই মুহূ’র্তে বিদেশি কর্মী এবং শরণার্থীদের উপর ব্যাপক স্ক্রি’নিংয়ের প্রয়োজন ছিল না। মালয়েশিয়ায় প্রায় ছয় মিলিয়ন বিদেশি’কর্মী এবং ১ লাখ ৯০ হাজার শরণার্থীর কথা উল্লেখ করে ডা. আহমাদ ফায়জাল বলেন, ‘সম্ভবত এখনও বিদে’শিকর্মীদের পর্যাপ্ত পরিমা’ণ পরীক্ষা করা এদিকে চলমান সং’ক’টময় সময়ে শুরু থেকেই অ’বৈধ বিদে’শিদের আটক অভিযানের বিরোধিতা করে আসছে তেনা’গানিতা। তেনা’গানিতার পরিচালক ও পরামর্শক জোসেফ পল ম্যা’লিয়ামাউভ বলছেন, দরিদ্র সুবিধাবঞ্চিতদের মালয়েশিয়ানদের মতোই পরীক্ষা করা উচিত। সরকারের একটি স্পষ্ট বার্তা পাঠানো উচিত যে, সাধারণ ক্ষ’মার সময় তারা নি’রাপদ থাকে এবং যদি তারা অসুস্থ বোধ করে তবে তাদের পরীক্ষা করা যেতে পারে।তেনা’গানিতার নির্বাহী পরিচালক গ্লোরিনি এ দাস বলছেন, গত ‘রি-হায়া’রিং প্রোগ্রাম’ চলাকালীন কয়েক হাজার অভি’বাসীকর্মী যারা কেডিএনকে কয়েক লাখ রিঙ্গিত প্রদান করেছে তাদের ক্ষে’ত্রেও এটি প্রযোজ্য কিনা? আজ পর্যন্ত সরকার (যদিও সর’কারগুলি পরিবর্তিত হয়েছে, তবে একই ব্য’ক্তিরা আজ নেতারা) প্রো’গ্রামটির ব্যর্থতা এবং অভিবাসী শ্রমিকদের ক্ষতি’গ্রস্ত হওয়ার জন্য দায়বদ্ধ হতে অস্বী’কার করেছে।

    যে সকল অভি’বাসী শ্রমিকরা তেনা’গণিতার সহায়তা চেয়েছিলেন তাদের প্রতিবেদন অনুসারে, পুরো রি-হায়ারিং প্রোগ্রা’মটি অদক্ষতা ও দুর্নী’তির সাথে হয়েছিল। ফলস্বরূপ, এর শিকার হওয়া প্রায় অর্ধ মি’লিয়ন অভি’বাসী শ্রমি’কের কাছ থেকে অর্থে আদায়ের জন্য সর’কার-স্পনসরিত কে’লেঙ্কা’রী হিসাবে আখ্যা’য়িত করা যেতে পারে । তারা কেবল তাদের অর্থ এবং পাস’পোর্ট হারায় নাই, তাদের নিজের কোনও দোষ না থাকলেও তারা অ’বৈধ থেকে যায় এবং তাদের আট’কে রাখা হয়, আদালতে অভি’যুক্ত করা হয় এবং নির্বাসিত করা অব্যাহত থাকে।তিনি বলেন, যারা গ্রে’প্তার হয়েছেন এবং আটক হয়েছেন তাদের মধ্যে অনেকে বৈ’ধ হিসাবেই এই দেশে এসেছেন কিন্তু তারা অ’বৈধ এবং প্রশা’সনিক অপরাধের জন্য ইমি’গ্রেশন আই’নের অধীনে অপ’রাধী হিসাবে বিবেচিত হবে, যার জন্য আমরা খুব সুপরিচিত। একথা আবার আ’মাদের মনে রাখা উচিত যে ‘কোনও মানুষ’ ‘অবৈধ’ হতে পারে না’।এদিকে, রি-হিয়া’রিং প্রোগ্রামের শেষের দি’কে বাংলাদেশের হাইক’মিশ’নার মহ. শহিদুল ইসলাম সংশ্লিষ্ট দফতরে চি’ঠির মাধ্যমে জানি’য়েছিলেন, রি-হিয়ারিং প্রোগ্রাম চলাকালে বাংলাদেশি অ’বৈধ কর্মী’রা সরকা’রের এ আহ্বানে সাড়া দিয়ে বৈ’ধ হওয়ার জন্য আবেদন করেও প্রতার’ণার শিকার হয়েছে।তাদের বৈ’ধ করে নে’য়ার আ’হ্বান আ’শ্বাস দেয়া হয়েছিল। কিন্তু প’টপরিব’র্তনে আর কিছুই হলো না। এছাড়া ম’হা’মারি করোনা’ভাইরাস নিয়’ন্ত্রণে চলমান মু’ভমেন্ট কন্ট্রোল সময়ে বৈধ অ’বৈধ বাংলা’দেশি কর্মীদের চিকিৎসা নিশ্চিত ও অবৈধদের গ্রেফতার না করতে মালয়ে’শিয়া সরকারকে অনুরোধ ও জানিয়েছিলেন হাই’কমিশনার মহ. শহিদুল ইসলাম।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে চিনাইরবার্তা.কম